default-image

পরবর্তী অংশে সাইতামা সিটির ডিপার্টমেন্ট অব কমার্স, ইন্ডাস্ট্রি অ্যান্ড ট্যুরিজমের পরিচালক হিতোশি শিবুইয়া বক্তব্য দেন। সেমিনারে বাংলাদেশে ব্যবসা ও বিনিয়োগের সুবিধাবিষয়ক প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ দূতাবাস টোকিওর মিনিস্টার (কমার্স) আরিফুল হক এবং ‘বাংলাদেশের দক্ষ মানবসম্পদের যথোপযোগী সদ্ব্যবহারের ক্ষেত্রে জাপান-বাংলাদেশের পারস্পরিক সহযোগিতা: প্রত্যাশা ও সম্ভাবনা’ শীর্ষক প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করেন দূতাবাসের ফার্স্ট সেক্রেটারি (লেবার) মো. জয়নাল আবেদিন। সেমিনারে জাপানের অর্থনীতি, বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রণালয়ের (মেটি) দক্ষিণ এশিয়া বিভাগের পরিচালক নরিইয়োশি ফুকুওকা বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতি ও সম্ভাবনার উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেন। এ ছাড়া ইয়োজি আন্ডো, কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ, জেট্রো বাংলাদেশ ধারণকৃত ভিডিও বার্তার মাধ্যমে বাংলাদেশে ব্যবসার পরিবেশ সম্পর্কে আলোচনা করেন। জাইকার প্রতিনিধি তোশিহিরো শিমিজো বাংলাদেশে জাইকার বিজনেস সাপোর্টিং সার্ভে বিষয়ে এবং মারুহিশা গ্রুপের প্রধান নির্বাহী কিমিনোবু হিরোইশি বাংলাদেশে জাপানের টেক্সটাইল কোম্পানির ব্যবসার অভিজ্ঞতা বিনিময় করেন।

অপর দিকে জাপানের ইন্টারন্যাশনাল ট্রেইনি অ্যান্ড স্কিল্ড ওয়ার্কার কো–অপারেশনের (জিটকো) সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট অ্যাম্বাসেডর শিগিয়ো মাসুতোমি বাংলাদেশি ট্রেইনিদের প্রেরণ ও গ্রহণের কাঠামো বিষয়ে এবং মাচিদা হাসপাতালের পরিচালক কেইসুকে ইরাকো তাঁর প্রতিষ্ঠানে নিয়োগকৃত বাংলাদেশি কর্মীদের কর্মদক্ষতা ও জাপানিজ ভাষায় দ্রুত দক্ষতা অর্জনের প্রশংসা করেন এবং বাংলাদেশ থেকে অধিকসংখ্যক কেয়ার গিভার নিয়োগের আগ্রহ প্রকাশ করেন। সেমিনারে বাংলাদেশ দূতাবাসের অন্যান্য কর্মকর্তা ছাড়াও জাইকা, জেট্রো, জাপান চেম্বার, মেটি এবং ইউনিডো-আইটিপিওর প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। বাংলাদেশ-জাপান কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছর পূর্তি উদ্‌যাপনের অংশ হিসেবে এ সেমিনারের আয়োজন করা হয়।

জাপানের সাইতামা সিটি, জাইকা, জেট্রো সাইতামা, ইউনিডো-আইটিপিও এবং জিটকো সেমিনার আয়োজনে সহযোগিতা করে। বিজ্ঞপ্তি

দূর পরবাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন