কানাডার লেকহেড বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজনীতিবিজ্ঞানের অধ্যাপক সৈয়দ সিরাজুল ইসলাম, গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব আসমা আহমেদ মাসুদ এবং স্থানীয় বাংলা টেলিভিশনের প্রধান নির্বাহী সাজ্জাদ আলী আলোচনায় অংশ নেন।

আলোচকেরা বলেন, কানাডার মূল ধারার রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে বাংলাদেশি কমিউনিটির অংশগ্রহণ বাড়লেই সরকার এবং রাজনীতিকদের কাছে কমিউনিটির গুরুত্ব ও গ্রহণযোগ্যতা বাড়বে।

আলোচনায় অংশ নিয়ে সৈয়দ সিরাজুল ইসলাম আসন্ন নির্বাচনে দলে দলে ভোটাধিকার প্রয়োগের জন্য বাংলাদেশি কমিউনিটির প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন, মূল ধারার রাজনৈতিক সমাজ থেকে কমিউনিটিকে আলাদা করে রাখা যাবে না।

উপমহাদেশের বিভিন্ন দেশের অভিবাসীরা কানাডার মূল ধারার রাজনীতিতে, সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ে গুরুত্বপূর্ণ পর্যায়ে আসীন। কানাডিয়ান রাজনৈতিক সমাজে নিজেদের অবস্থান দৃঢ় করতে না পারলে বাংলাদেশি কমিউনিটি এগিয়ে যেতে পারবে না। তিনি বাংলাদেশি কমিউনিটির মিডিয়াগুলোকে কানাডিয়ান রাজনীতি সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য–উপাত্ত প্রকাশ করে কমিউনিটিকে কানাডিয়ান রাজনীতির ব্যাপারে উৎসাহী করে তোলার আহ্বান জানান।

আসমা আহমেদ বলেন, রাজনৈতিক দলের কর্মসূচি কতটা গণমুখী ও অভিবাসীবান্ধব, সেটা বিবেচনা করে ভোটের জন্য প্রার্থী এবং দল বাছাই করা দরকার। যোগ্য দল এবং প্রার্থীকে জিতিয়ে দেওয়ায় কমিউনিটিকে ভূমিকা রাখতে হবে। তিনি বলেন, বাংলাদেশি কমিউনিটির যাঁরা নির্বাচনে মনোনয়ন চান বা প্রার্থী হন, তাঁদের নিজেদের অবস্থান কমিউনিটির সামনে পরিষ্কারভাবে তুলে ধরা দরকার, যাতে কমিউনিটি তাঁদের ব্যাপারে সুচিন্তিত সিদ্ধান্ত নিতে পারে।

বাংলা টেলিভিশনের প্রধান নির্বাহী সাজ্জাদ আলী তাঁর বক্তৃতায় জনপ্রতিনিধি হতে আগ্রহী ব্যক্তিদের যথোপযুক্তভাবে যোগ্য করে তোলার পরামর্শ দিয়ে বলেন, মূল ধারার রাজনীতিতে বা নির্বাচনে যাঁরা প্রার্থী হন, তাঁদের পাশে দাঁড়িয়ে কথা বলার সক্ষমতা না থাকলে কেবল ভোটে দাঁড়িয়ে গেলেই কমিউনিটির ক্ষমতায়ন হয় না।

নতুনদেশের প্রধান সম্পাদক শওগাত আলী আসন্ন নির্বাচনে বিভিন্ন দলের কর্মসূচি এবং নির্বাচনের বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে শওগাত আলী সাগর লাইভে নিয়মিত আলোচনার ঘোষণা দেন। তিনি বলেন, এবারের নির্বাচনে কমিউনিটির সদস্যরা যাতে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের অবস্থান কর্মসূচি ভালোভাবে জানতে পারেন, সে জন্য তথ্য ও সচেতনতামূলক কর্মসূচি নেওয়া হবে।

দূর পরবাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন