default-image

সাতক্ষীরার শ্যামনগরে স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ভাব বাংলাদেশের পক্ষ থেকে ২০২০ সালে বিকেএসপিতে ফুটবলে ভর্তির সুযোগ পাওয়া চার শিক্ষার্থীকে ভর্তির খরচ দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া গণিত অলিম্পিয়াডে জাতীয় পর্যায়ে অংশগ্রহণের সুযোগ পাওয়া তিন শিক্ষার্থী ও তাদের দুই শিক্ষককে পুরস্কার, করোনায় আক্রান্ত দুই শিক্ষককে আর্থিক সহায়তা, শতভাগ কম্পিউটার সাক্ষরতা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ চারটি স্কুলকে পুরস্কার এবং বিতর্ক প্রতিযোগিতায় উপজেলা চ্যাম্পিয়ন ও জাতীয় পর্যায়ে রানার্সআপ স্কুলকে পুরস্কার প্রদান করা হয়েছে।

উপজেলা পরিষদের হল রুমে গতকাল বুধবার উপজেলা নির্বাহী অফিসার আ ন ম আবুজর গিফারীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে পুরস্কার ও আর্থিক সহায়তা প্রদান করেন শ্যামনগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউল হক দোলন। এ সময় বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের একাডেমিক সুপারভাইজার মিনা হাবিবুর রহমান, চিংড়াখালী মাধ্যমিক বিদ্যানিকেতনের প্রধান শিক্ষক জয়দেব বিশ্বাস, কাঁঠালবাড়িয়া এজি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আজাহারুল ইসলাম, রমজানগর ইউনিয়ন তোফাজ্জেল বিদ্যাপীঠের প্রধান শিক্ষক শেখ মতিউর রহমান, শিক্ষক রনজিৎ বর্মন ও ভাব বাংলাদেশের অ্যাম্বাসেডর আবদুল আলিম প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন

বিকেএসপিতে ফুটবলে ভর্তির সুযোগ পাওয়া চার শিক্ষার্থী হলো রমজানগর ইউনিয়ন তোফাজ্জেল বিদ্যাপীঠের মোছা. রাফেজা খাতুন, কাঁঠালবাড়িয়া এজি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের কৃষ্ণ কুমার মণ্ডল, শওকতনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মো. আরিফুল ইসলাম ও জোবেদা সোহরাব মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মো. হৃদয় হোসেন। গণিত অলিম্পিয়াডে জাতীয় পর্যায়ে অংশ গ্রহণের সুযোগ পাওয়া তিন শিক্ষার্থী হলো রমজানগর ইউনিয়ন তোফাজ্জেল বিদ্যাপীঠের সৌরভ চন্দ্র মণ্ডল এবং সুন্দরবন মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের রুমি আক্তার ও সাধনা মণ্ডল। শতভাগ কম্পিউটার সাক্ষরতা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ চারটি স্কুল হলো চিংড়াখালী মাধ্যমিক বিদ্যানিকেতন, সুন্দরবন মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, ছফিরুন্নেছা মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় ও তপোবন মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়।

নাগরিক সংবাদ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন