বিজ্ঞাপন

সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং স্বাস্থ্যসচেতনতার প্রশ্নে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা কলকারখানা কিংবা পোশাক খাতের কর্মীদের চেয়ে অনেক বেশি সচেতন। এ অবস্থায় দেশে করোনার প্রকোপ তুলনামূলক কমে গেলে এবং লকডাউন শিথিল করার মতো পরিস্থিতি তৈরি হলে যথাসম্ভব দ্রুত বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খুলে দেওয়া উচিত। প্রয়োজনে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের টিকার আওতায় এনে বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেওয়া হোক।

হাজারো বদ্ধ স্রোত আছড়ে পড়ুক জীবননদীর তীরে। যে বাবা করোনার এই ক্রান্তিলগ্নে পারিবারিক চাহিদা মেটাতে বাইরে চলে যান, তাঁর সন্তান হয়ে আমি কী করে লেজ গুটিয়ে বদ্ধ ঘরে বসে থাকব নামমাত্র অনলাইন ক্লাস করে? আমাকেও যে সংসারের হাল ধরতে হবে।

* লেখক: যোবায়ের ইবনে আলী, শিক্ষার্থী, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, দিনাজপুর।
**[email protected]–এ লেখা পাঠাতে পারেন।

নাগরিক সংবাদ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন