বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

‘আমার চোখে গবি ক্যাম্পাস’ এবং ‘মহামারিতে জীবন’ শিরোনামে আলোকচিত্র প্রতিযোগিতার আয়োজন করে দুই সংগঠন। এ ছাড়া মেডিকেল শিক্ষার্থীদের জন্য আয়োজিত হয় মাসিক আলোকচিত্র প্রতিযোগিতা। এতে অংশগ্রহণকারীদের মধ্য থেকে বিচারিক প্রক্রিয়ায় নির্বাচিত মোট ৪২টি ছবি প্রদর্শন ও পুরস্কৃত করা হয়। সেই সঙ্গে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে আলোকচিত্রীর মাধ্যমে বাংলাদেশের স্বাধীনতার ইতিহাসের স্মৃতিচিহ্নগুলো তুলে ধরার উদ্দেশ্যে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র ও গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোগে আয়োজিত বাংলাদেশের প্রথম জাতীয় পর্যায়ের আলোকচিত্র প্রতিযোগিতা ‘পিএইচপিসি বিশেষ আলোকচিত্র প্রতিযোগিতা ২০২১’ বিজয়ী ২৯টি ছবি, বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর এটিএম হায়দারের (বীর উত্তম) বিশেষ ১টি ছবি, ১৯৭৪ সালে ‘বিচিত্রা’ ম্যাগাজিনের প্রচ্ছদে প্রকাশিত বীর মুক্তিযোদ্ধা জাফরুল্লাহ চৌধুরীর ১টি ছবিসহ মোট ৭৪টি ছবি নিয়ে দিনব্যাপী এ প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়।

default-image

দিনব্যাপী জমকালো আয়োজনের সূচনা ঘটে সমবেত কণ্ঠে জাতীয় সংগীতের সঙ্গে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, বিশ্ববিদ্যালয়ের পতাকা ও উভয় ক্লাবের পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে। উপস্থিত সবাইকে লাল-সবুজ পতাকা উপহার দেওয়া হয়। বিশেষ অতিথিরা আসন গ্রহণ করে বিজয়ীদের হাতে সনদ, বই, প্রাইজবন্ড ও বিভিন্ন উপহার তুলে দেন। এ ছাড়া ৪২ জন বিজয়ী পেয়েছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র থেকে প্রকাশিত ‘সাতজন বীরশ্রেষ্ঠ’-এর ছবিসংবলিত একটি বিখ্যাত পোস্টার।

বিশিষ্ট অণুজীববিজ্ঞানী বিজন কুমার শীলকে উভয় ক্লাবের পক্ষ থেকে ‘কোভিড-১৯ হিরো’ সম্মাননা স্মারক দেন ক্লাবের সভাপতি ও শিক্ষক উপদেষ্টারা। পরে ফিতা কেটে আলোকচিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন করা হয়। মধ্যাহ্নভোজের পর আইকিউএসি সভাকক্ষে আলোকচিত্রশিল্পী হাসান সাইফুদ্দীন চন্দন ‘বেসিক ফটোগ্রাফি কর্মশালা’ পরিচালনা করেন। প্রত্যেক অংশগ্রহণকারীকে দেওয়া হয় সনদ।

default-image

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (চলতি দায়িত্ব) মো. আবুল হোসেন, কোষাধ্যক্ষ মো. সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, রেজিস্ট্রার কৃষিবিদ এস তাসাদ্দেক আহমেদ, আইকিউএসির পরিচালক বীর মুক্তিযোদ্ধা লায়লা পারভীন বানু, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মনজুর কাদির আহমেদ, মেডিকেল কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের ডিন, শিক্ষক, চিকিৎসক, শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা ও কর্মীরা। গণ বিশ্ববিদ্যালয় মিউজিক কমিউনিটি, ক্যাম্পাসপড়ুয়া ও মেডিকেল শিক্ষার্থীদের যৌথ অংশগ্রহণে সাংস্কৃতিক পর্বের মধ্য দিয়ে সন্ধ্যায় আলোকচিত্র উৎসবের ইতি ঘটে।

default-image

জিবিপিএস সভাপতি মো. রাকিবুল হাসান বলেন, ‘“আলোকচিত্রে বদলাই চিন্তার দৃষ্টিকোণ” প্রতিপাদ্যে গণ বিশ্ববিদ্যালয়ে দ্বিতীয়বারের মতো আলোকচিত্র প্রতিযোগিতার ইতি ঘটল। যাঁরা আলোকচিত্র উৎসবকে সাফল্যমণ্ডিত করার জন্য অনুপ্রেরণা ও সহায়তা করেছেন, তাঁদেরকে আন্তরিক কৃতজ্ঞতা। প্রত্যাশা করি, পরবর্তী সময়ও সোসাইটির পাশে থাকবেন।’

গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (চলতি দায়িত্ব) মো. আবুল হোসেন বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের প্রতিটি ভালো কাজে পাশে আছে। আজকের অনুষ্ঠানে উপস্থিত সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ।

নাগরিক সংবাদ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন