বিজ্ঞাপন

করোনা খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ার কারণে তা রোধ করতে বিশেষজ্ঞরা আইসোলেশন, কোয়ারেন্টিন, মাস্ক ব্যবহার, স্যানিটাইজেশন, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখাসহ নানা ধরনের নিয়মনীতির কথা বলেছেন, যা আমাদের সবারই মেনে চলা একান্ত দায়িত্ব। যদিও আমাদের অনেকেই টিকা গ্রহণ করেছে, তারপরও তাদের বিশেষজ্ঞরা স্বাস্থ্যবিধি মেনেই চলাচল করতে পরামর্শ দিচ্ছেন বারবার। এ জন্য এবারের নববর্ষ উদ্‌যাপনে জনসমাগম হয়—এ রকম কোনো অনুষ্ঠানের আয়োজন না করাই সবচেয়ে ভালো সমাধান হবে বলে অনেকেই মনে করেন। তবে ঘরোয়া বা পারিবারিকভাবে ছোটখাটো অনুষ্ঠানের আয়োজন করে পরিবারের সদস্যরা মিলে নববর্ষ উদ্‌যাপনের সংস্কৃতি চর্চা অব্যাহত রাখা যেতে পারে। যেহেতু দেশে লকডাউন শুরু বুধবার থেকে, সেহেতু রাষ্ট্রীয় নির্দেশ অমান্য করে কোথাও জমায়েত হওয়া বা দূরবর্তী কোথাও নববর্ষ পালেনের উদ্দেশ্যে যাওয়া উচিত হবে না। কারণ, এ মুহূর্তে দেশে মৃত ও করোনায় আক্রান্ত, উভয়ের সংখ্যাই ব্যাপকহারে বৃদ্ধি পেয়েছে। এ জন্য দেশ ও জাতির স্বার্থে এবং নিজেকে নিরাপদ রাখার জন্য এবারের নববর্ষ উদ্‌যাপন হোক একটু ভিন্নভাবেই।

*লেখক: মো. জাফর আলী, শিক্ষার্থী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

**[email protected] এ লেখা পাঠাতে পারেন।

নাগরিক সংবাদ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন